পাখি তাড়াতে শাহজালালে একমাত্র বন্দুকই সম্বল

0
67

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের রান ওয়ের আশ পাশে রয়েছে ছোট বড় জলাশয় । ফলে সারাবছর বিমানবন্দর এলাকায় পাখির আনাগোনা থাকলেও শীত মৌসুমে আরও উপদ্রব বাড়ে । প্রতি বছরই উড়ো জাহাজের ইঞ্জিনে পাখি ঢুকে পরা বা বার্ড হিট এর কারনে জরুরী অবতরণ এর জন্য বাধ্য হয় অনেক ফ্লাইট । গেলো বছর ও বাংলাদেশ বিমানের একটি বার্ড হিট এর কবলে পরলে বিমান বন্দরে ফ্লাইট উঠা নামা বন্ধ রাখা হয় ৩ ঘন্টা । পাইলটের দক্ষতায় এই পর্যন্ত বড় কোন দুর্ঘটনা বা প্রানহানী না হলেও ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছে অনেক উড়োজাহাজ । ৫০০ ফিট থেকে ১০০০ ফিট এর মধ্যেই সাধারণত এই বার্ড হিট এ্যাটাক গুলো হয় । এই উচ্চতায় চিল এমনক ঈগল এর পাখি থাকে যা ইঞ্জিনের মধ্যে ঢুকে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে । যার ফলে ইঞ্জিন হটাত বন্ধ হয়ে যেয়ে পারে যেকোনো একটি যন্ত্রাংশ নষ্ট হতে পারে । এর আগে যত গুলো দুর্ঘটনা হয়েছে তা সবই হয়তো উঠার সময় বা নামার সময় কিন্তু যদি পাইলটের চোখ ফাকি দিয়ে ইঞ্জিন এ ঢুকে পড়লে বর ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে । এই পর্যন্ত সব বার্ড হিট হয়তো পাখায় বা হয়ত এমন যায়গায় লেগেছে তা তেমন কোন ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায় নি কিন্তু যদি পাখি ইঞ্জিন এ ঢুকে পড়লে উড়োজাহাজ এর যেকোন ধরনের ক্ষতি হতেই পারে । আগে বিমান বন্দরে বন্দুকের পরিমান ৬ টা ছিলো এখন ২ টি সচল আছে আর বাকি ৪ টি বন্ধুকই নষ্ট হয়ে পড়ে আছে । আর কিছু বন্ধুক কিনার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে যা সরকারের অনুমতি পেলেই কিনা হয়ে যাবে । বিমান বন্দরে পাখি নিয়ন্ত্রণে রাডার সহ আধুনিক পদ্ধতি স্থাপনের কথা বলছেন সিভিল এ্যাভিয়েশন চেয়ারম্যান ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here