থামছেই না অবৈধ ওয়াকিটকি’র ব্যবহার

0
24

ওয়াকিটকি হাতে বহন যোগ্য দ্বিমুখী বেতার যন্ত্র । নিজেরদের মধ্যে যোগাযোগে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কিংবা সরকারী সংস্থার হাতে দেখা যায় যন্ত্রটি । কিন্তু এখন সাধারণ মানুষের হাতে প্রায়ই দেখা যায় সংবেদনশীল এই যন্ত্র । ওয়াকিটকি অপব্যবহারের সব শেষ উদাহরণ এম পি হাজি সেলিম পুত্র ইরফান সেলিম । জনপ্রতিনিধি হয়েও আইনের তোয়াক্কা না করেই বিনা অনুমতিতেই ব্যবহার করছিলেন অন্তত ৩৮ টি ওয়াকিটকি এর পরের গল্প অজানা নয় কারোই । কিন্তু হাত কিংবা কোমরে ওয়াকিটকি নিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত কিংবা প্রতারণার ঘটনা বেশ পুরনো । পণ্যটি ব্যবহারের আইন থাকলেও থামছে না অপব্যবহার । বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ আইন ২০০১ এর  ৫৫ ধারায় বলা হয়েছে কোন ব্যক্তি লাইসেন্সে ছাড়া দেশের ভুখন্ড সমুদ্রসীমা বা আকাশ সীমায় বেতার যন্ত্র স্থাপন পরিচালনা বা ব্যবহার করতে পারবেন না । তবে শর্ত সাপেক্ষে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয় ওয়াকিটকি ব্যবহারের লাইসেন্স । বিটিআরসি বলছে পণ্যটির অপব্যবহার বন্ধের দায়িত্ব পুলিশের অন্যদিকে কঠোর অবস্থান রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ । বিটিআরসি কোন ব্যক্তি কে ওয়াকিটকি ব্যবহার করতে দেয় না শুধুমাত্র কোম্পানিকে এটি ব্যবহারের সুবিধা দেওয়া হয় তাও আবার বিশেষ শর্ত সাপেক্ষে যা খুব কম কোম্পনিই বহন করতে পারে । আর বাজারে বেশ কিছু অবৈধ ওয়াকিটকি আছে যা বন্ধে পুলিশের কাজ করার কথা বলে জানিয়েছেন বিটিআরসি এর চেয়ারম্যান । পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন তারা যদি কোন অবৈধ বেতার যন্ত্র পায় তাহলে তার তা জব্দ করবে । ওয়াকিটকির সন্দেহজনক ব্যবহার জানাতে নাগরিকদের উনুরোধ পুলিশের ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here