গভীরতা না থাকায় সমুদ্রসম্পদ উত্তোলনের সক্ষমতা নেই বাংলাদেশের

0
22

সমুদ্র অর্থনীতি থেকে লাভবান হতে হলে থাকতে হবে গভীর সমুদ্র বন্দর কিন্তু চট্ট্রগ্রাম মংলা ও পায়রা বন্দর এর গভীরতা না থাকায় ভিড়তে পারছে না মাদার ভেসেল । তাই নির্মাণাধীন মাতার বাড়ি গভীর সমুদ্র বন্দরই একমাত্র ভরসা এমনকি সমুদ্র তলদেশের খনিজ পদার্থ উদপাদনেও সক্ষমতা নেই । বিশ্ব অর্থনীতির অনেকটাই সমুদ্র নির্ভর প্রায় সাড়ে  ৭০০ কোটি মানুষের আমিষ এর যোগান আসে সামুদ্রিক মাছ উদ্ভিদ ও জীব জন্তু থেকে । বিশ্বের মোট চাহিদার  ৩০ ভাগ জ্বালানী আসে সমুদ্র তলদেশ থেকে । এই খাত থেকে আসে অস্ট্রলিয়ার অর্থনীতির  ৬৪ মিলিয়ন ডলার তবে সব দেশের অবস্থা এক নয় । সমুদ্র সম্পদ আহরণ করতে গিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে অনেক দেশ সংঘাতময় এই পরিস্থিতি সামাল দিতে কাজ করছে সমুদ্র তলদেশ বিষয়ক আন্তর্জাতিক একটি মাধ্যম । প্রথম বারের মতো এই সংস্থাটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে কোন বাঙালি । বর্তমানে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় এর সমুদ্র বিষয়ক ইউনিট এর সচিব হিসেবে কাজ করছেন তিনি । তিনি বলেন এই সমুদ্রের তলদেশে যেই সম্পদ আছে এই সম্পদ গুলো কিভাবে উঠানো হবে কিভাবে পরিবেশের ক্ষতি না করে এগুলো উত্তোলন করা যায় । খোরশেদ আলম এর মতে সমুদ্র অর্থনীতির সুবিধা নিতে প্রয়োজন গভীর সমুদ্র বন্দর । মাতার বাড়ি ছাড়া অন্য বন্দর গুলোর তেমন সম্ভবনা নেই  । কেননা মংলা ও পায়রা বন্দর অনেক ভিতরে হওয়ায় এর গভীরতা অনেক কম তাই কোন জাহাজ ঢুকতে পারে না । এখন আমাদের জাপানের তৈরি করা মাতার বাড়ি বন্দর দিয়েই কাজ শুরু করতে হবে । যদি বাংলাদেশ সমুদ্র সম্পদ আহরণ এ সফল হয় তাহলে অর্থনীতিতে অনেক এগিয়ে যাবে দেশ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here