Take a fresh look at your lifestyle.

করোনা সময়ে মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এলেন যেসব তারকারা

0

সাবরিনা সাবাঃ করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বিশ্ববাসী ঘরবন্দী রয়েছেন। বাংলাদেশেও ঘরবন্দী রয়েছেন মানুষেরা। এতে করে দেশের নিম্ন আয়ের মানুষরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। আর এ সময়ে নিম্ন আয়ের এ মানুষগুলোকে সহযোগিতা করছেন বিত্তবানরা। এছাড়াও বিত্তবানদের ভিড়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন কণ্ঠশিল্পী সাবরিনা সাবা। নিজের সামর্থ অনুযায়ী সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। নিজের জমানো কিছু টাকা দিয়েই তিনি নিম্ন আয়ের কিছু মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সাবা লেখেন, কয়েকটি পরিবারের জন্য ২০ কেজি চাল, পেঁয়াজ, লবণ, আলু প্যাকিং শুরু। আসলে টাকাটা জমিয়েছিলাম, মিউজিক ভিডিও বানাবো বলে না হয় সেমিস্টার ফির জন্য। কিন্তু আমরা কেউই জানি না, কখন জীবন পাল্টে যায়। ভাবলাম, যে মানুষের এত ভালবাসা! তাদের জন্য কিছুই করবো না? বেঁচে থাকলে অনেক কিছু করতে পারব। তাই ঢাকার ভেতরে আপাতত কিছু পরিবারের জন্য পাঠাবো ঠিক করে ফেললাম। সাবা অনুরোধ করে বলেন, যখন বিতরণ করবেন, বণ্টন করবেন, সেই মানুষগুলোর ছবি তুলেবেন না। এটা অত্যন্ত নেতিবাচক সেই পরিবারের জন্য; যারা চক্ষুলজ্জায় কাউকে কিছু বলতে পারছেন না। আশা করি, যারা ইনবক্সে মুখ ফুটে বলেছেন। সহযোগিতা চেয়েছেন অলরেডি কিছু মানুষের কাছে তহবিল চলে গেছে। কাজটা করার সময় বারবার মনে হচ্ছিল, ইশ! আল্লাহ যদি আমাকে আরো দিতেন, আরো কিছু করতে পারতাম। যাদের দিতে পারিনি, আশা রাখুন দোয়া রাখুন, কিছু যেন করতে পারি। যতদিন বাঁচব, এভাবে মিলে মিশেই না হয় বাঁচব।

 

শাহরুখ খানঃ করোনা মোকাবিলায় বড় বড় তারকাও দেখিয়েছেন তাদের মহত্ত্ব। এই তালিকায় বাদ যাননি বলিউডের কিং খান শাহরুখ। বিসাল অংকের অনুদান ঘোষণা দিয়েছিলেন আগেই। এ বার নিজের চারতলা বাড়ি-অফিসকে জনসাধারণের জন্য কোয়রান্টিন সেন্টার ঘোষণা করেছেন তিনি। শনিবার সকালে গ্রেটার মুম্বই পৌরসভার পক্ষ থেকে একটি টুইট করা হয় । সেই টুইটে শাহরুখ এবং তার স্ত্রীকে এই চরম দুঃসময়ে মানুষের পাশে এই ভাবে থাকার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে লেখা হয়, ‘শাহরুখ এবং গৌরী খান তাদের ব্যক্তিগত চারতলা অফিসটি শিশু, মহিলা এবং বয়স্কদের কোয়রান্টিন সেন্টার হিসেবে দান করার মতো যে পদক্ষেপ নিলেন তা নিঃসন্দেহে সুচিন্তার প্রতিফলন।’ জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর ফান্ডে কলকাতা নাইট রাইডার্স, আইপিএল ফ্যাঞ্চাইজির মালিক গৌরী খান আর শাহরুখ খান, জুহি চাওলা মেটা, জয় মেটা অর্থ দান করবেন। মহারাষ্ট্র মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে রেড চিলিস এন্টারটেনমেন্ট টাকা দেবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা পরিষেবা প্রদানকারী মীর ফাউন্ডেশন এবং কেকেআর যৌথভাবে পশ্চিমবঙ্গ আর মহারাষ্ট্র সরকারের সঙ্গে কাজ করে ৫০,০০০ পিপিই কিট দেবে। মীর ফাউন্ডেশন আর একসাথে আর্থ ফাউন্ডেশন মুম্বাইয়ের ৫৫০০ পরিবারকে এক মাসের খাবার দেবে। নতুন করে ব্যবস্থা করা হবে রান্নাঘরের, যেখানে রোজ ২০০০ মানুষের রান্না করা হবে। এই রান্না পৌঁছে দেওয়া হবে সেই সব মানুষের কাছে যারা ঠিক মতো খাবার পাচ্ছেন না। রোটি ফাউন্ডেশন ইতিমধ্যে গরীব মানুষদের কাছে মুম্বাই পুলিশের সাহায্যে খাবার পৌঁছে দিচ্ছে। এ বার শাহরুখের মীর ফাউন্ডেশন এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে দশ হাজার মানুষের জন্য এক মাস ধরে তিন লাখ খাবারের প্যাকেট দেবে। মীর ফাউন্ডেশন দিল্লির প্রান্তে থাকা ২৫০০ দিন মজুরদের জন্য এক মাস চাল, ডাল, সব্জি সরবরাহ করবে। মীর ফাউন্ডেশন অ্যাসিড সারভাইভারদের জন্য মাসিক ভাতা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে উত্তরপ্রদেশ, বাংলা, বিহার, উড়িশ্যার জন্য।

 

সালমান খানঃ বলিউডের ‘ভাইজান’ খ্যাত অভিনেতা সালমান খান কথা দিয়েছিলেন ভারতে লকডাউনের সময় বলিউড ইন্ডাস্ট্রির প্রায় ২৫ হাজার দিনমজুরের দায়িত্ব একাই নিজের কাঁধে তুলে নেবেন। সেই অনুযায়ী তিনি তার কথা রাখলেন। বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তালিকাভুক্ত দিনমজুরদের ব্যাংক অ্যাউন্টের ডিটেলস চেয়ে নিয়েছিলেন। ইতোমধ্যেই প্রত্যেকের অ্যাকাউন্টে অর্থ ট্রান্সফার করা শুরু করেছেন ‘তেরে নাম খ্যাত’ ভারতীয় এ অভিনেতা। ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন বলছে, ২৫ হাজারের মধ্যে ১৯ হাজার দিনমজুর ইতোমধ্যেই সালমানের অর্থ পেয়েছেন। বাকিদেরও আনুদানের অর্থ তাদের অ্যাকাউন্টেও খুব শিগগিরই পৌঁছে যাবে। শুধু তাই নয়, ভারতের লকডাউনের সময়সীমা বাড়লে সালমানের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন সালমান খানের ব্যক্তিগত সহকারী জর্ডি প্যাটেল। ফেডারেশন অব ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়িজ-এর সাধারণ সম্পাদক অশোক দুবে এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ইন্ডাস্ট্রির দিনমজুরদের প্রায় অনেকের কাছেই সালমানের অনুদান পৌঁছানো শুরু করেছে। অতি শিগগিরই বাকিদের কাছেও পৌঁছে যাবে টাকা। নানা সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সালমান খান জড়িত। তার ‘বিইং হিউম্যান’ একটি সংস্থা রয়েছে। এই সংস্থা থেকে সালমান খান বহু দুস্থদের পড়াশোনা, ওষুধপাতির দায়িত্ব নিয়েছে।

অমিতাভ বচ্চনঃ করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে ভারতে ঘোষণা করা হয়েছে লকডাউন। করোনাভাইরাস থেকে মৃত্যুঝুঁকি ছাড়াও খাদ্যের সংকুলান করা নিয়ে বেশ চিন্তিত হতদরিদ্র, স্বল্প ও নিম্ন আয়ের মানুষ। আর এবার তাদের পাশে এগিয়ে এলেন বলিউড মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন। অল ইন্ডিয়া ফিল্ম এমপ্লয়িস কনফেডারেশনের মাধ্যমে এক লাখ দিনমজুর পরিবারকে মাসিক রেশন সহযোগিতার ঘোষণা দিয়েছেন বলিউডের বিগ বি অভিমাতাভ। হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে জানা যায়, অল ইন্ডিয়া ফিল্ম এমপ্লয়িস কনফেডারেশনের মাধ্যমে মাসিক রেশন দিয়ে সাহায্য করবেন অমিতাভ। এই কাজের পৃষ্টপোষক হিসেবে থাকবে নি পিকচার্স নেটওয়ার্ক ও কল্যাণ জুয়েলার্স। তবে কবে নাগাদ তারা এই রেশন পাবে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানায়নি ভারতীয় গণমাধ্যমটি। সনি পিকচার্স নেটওয়ার্কস ইন্ডিয়ার (এসপিএন) প্রধান নির্বাহী এন পি সিং জানান, ভারতের চলচ্চিত্র ও টিভি ইন্ডাস্ট্রিতে দৈনিক ভিত্তিকে কাজ করা কর্মীদের সহায়তায় বচ্চনের পাশে দাঁড়িয়েছে আমাদের প্রতিষ্ঠান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.